আমরা যখন পড়তে বসি তখন আমাদের এনার্জি লেভেল ১০০% থাকে। তখন আমরা ভাবি প্রত্যেকদিন ৬-৮ ঘন্টা পড়বোই। এরপর পড়তে বসার ১০-১৫ মিনিট পড়েই আমাদের এনার্জি লেভেল ১০০ থেকে ১০% এসে পড়ে। তখন আমরা ভাবি আজকে থাক অনেক ঘুম পাচ্ছে, বা দেখি ফেসবুকে কে মেসেজ দিলো,হোয়াটস এপ এর ভিডিও টা খুব সুন্দর তো এসব নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়ি।
কিছু স্পেশাল টেকনিক রয়েছে যার মাধ্যমে আপনার কাছে পড়াশোনা খেলার মতো মনে হবে,

যখন আমরা পড়তে বসবো তখন আমাদের প্রথম কাজ হলো মোবাইলকে চোখের সামনে থেকে দূরে রাখা। সম্ভব হলে মোবাইল বন্ধ রাখা। ১ম দিনে পড়ার সময়টাকে অবশ্যই একটু কম রাখুন যেমন- ২০ মিনিট পড়ে ১০ মিনিট বিরতি নিন আবার ১৫ মিনিট পড়ে ৫ মিনিট বিরতি নিন। প্রথমদিন ৩ ঘন্টা পড়াশোনা করুন যার মধ্যে ২ ঘন্টা হবে আপনার পড়া আর বাকি সময়টা বিরতি। তারপরদিন আবার বিরতির সময় টা কমিয়ে দিন। এভাবে চলতে থাকলে পড়ার প্রতি আগ্রহ বাড়বে আর অভ্যাস হয়ে যাবে।

আমরা কখন পড়বো?
আমাদের সবার মস্তিষ্ক পুরোপুরি আলাদা। তাই এক্ষেত্রে নিজেদের ঠিক করতে হবে কখন পড়তে বসলে আপনার পড়ায় মন বসবে। কেউ সকালে,কেউ বিকেলে,কেউ সন্ধায় পড়তে পছন্দ করে। তাই আপনার বুঝে নিতে হবে কখন পড়তে বসলে আপনার পড়ায় মনোযোগ বসবে।

বিছানায় বসে পড়াটা একদম উচিৎ নয়। কারণ বিছানায় বসে পড়লে ধীরে ধীরে আমাদের শুয়ে পড়তে ইচ্ছে করে। কিছু সময় যাওয়ার পর আমাদের চোখে ঘুম চলে আসতে পারে। এই কারণেই বিছানায় বসে পড়া থেকে চেয়ার টেবিলে বসে পড়াটা অনেক বেশি এফেক্টিভ। আর যখন পড়তে বসবেন পড়ার সব সামগ্রী একবারে নিয়ে বসবেন যাতে বারবার উঠতে না হয়।

পড়তে বসে আপনার মাথায় বাহিরের কোনো চিন্তাই ঢুকানো যাবেনা। যেমনঃ ইশ আর ৭ দিন পরেই পরীক্ষা,পাড়ার ছেলেটা আমার থেকেও ভালো ছাত্র,পাশ করতে না পারলে পাড়ার লোকের কাছে মুখ দেখাবো কিভাবে ইত্যাদি। এসব চিন্তা বাদ দিয়ে পড়ার টেবিলে নিজের মন টা কে সবসময় ফ্রেশ রাখুন। তাহলে এমনিতেই পড়া হবে।