রাজনীতিঃ

 

খাদ্য মন্ত্রণালয়ে গত এক বছরে কোনো কর্মকর্তা ও কর্মচারী দুর্নীতি করতে পারেননি বলে দাবি করেছেন মন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।
শনিবার দুপুরে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) জহির রায়হান মিলনায়তনে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগ ও বাংলাদেশ বোটানিক্যাল সোসাইটির যৌথ উদ্যোগে বার্ষিক উদ্ভিদ বিজ্ঞান সম্মেলনের উদ্বোধন শেষে এ কথা বলেন খাদ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, একসময় বাংলাদেশে সাত কোটি মানুষ ছিল। তারপরেও সে সময় অনেকে ভাত না পেয়ে ভাতের মাড় খেয়ে দিন পার করেছে। তখন বিদেশ থেকে আমাদের চাউল আমদানি করতে হয়েছে।

কিন্তু এখন আমরা বিদেশ থেকে চাউল আমদানি না করেও ১৭ কোটি মানুষের খাদ্যের চাহিদা পূরণ করতে পারছি। মানুষ বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে জমি কমেছে তারপরেও দেশ এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন। এখন সরকার মানুষের কাছে ভেজাল মুক্ত পুষ্টিমান ও নিরাপদ খাবার সরবরাহের জন্য কাজ করছে।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও ঐতিহ্যের মূল চালিকা শক্তি উদ্ভিজ্য প্রাকৃতিক সম্পদ। এর সফল ও টেকসই ব্যবহার অত্যন্ত জরুরি।

নিত্য নতুন টেকসই প্রযুক্তি উদ্ভাবনের মাধ্যমে এ প্রাকৃতিক সম্পদকে জাতির কল্যাণে ব্যবহার করতে হবে। উদ্ভিদরাজি প্রকৃতির অমূল্য সম্পদ। এই সম্পদসমূহ টিকে থাকলে জীব জগৎ ও মানুষ বেঁচে থাকবে।

খাদ্যমন্ত্রী আরো বলেন, ‘সরকার অ্যাপের মাধ্যমে মাঠ পর্যায়ের কৃষকদের থেকে ধান সংগ্রহ শুরু করেছে। পুলিশ, সেনাবাহিনী ও বিজিবির জন্য খাদ্য মন্ত্রণালয়ে সাত থেকে আট লাখ টন খাদ্য রিজার্ভ রাখতে হয়। এ জন্য চাল কিনলে বাজারে এর একটা প্রভাব পড়ে না। তাই এবার বেশি করে ধান কেনা হয়েছে।

সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম, বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক জেড এন তাহমিদা বেগম, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আমির হোসেন, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক নুরুল আলম, বাংলাদেশ বোটানিক্যাল সোসাইটির  সভাপতি অধ্যাপক এম আবদুল গফুর, উদ্ভিদবিজ্ঞান সম্মেলনের আহ্বায়ক অধ্যাপক ফিরোজা হোসেন ও সদস্য সচিব অধ্যাপক এম মাহফুজুর রহমান এবং উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক নুহু আলম প্রমুখ।